সব জাতীয় সংবাদ

কাশিয়ানীতে  উপজেলা নির্বাচনে নির্বাচিত হলেন যারা

 

দেশে ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে এবার যারা নির্বাচিত হয়েছেন।

উপজেলার ইউনিয়নে ৭৫টি ভোট কেন্দ্রে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণও ফলাফল গননা শেষ হয়। উপজেলার ৭৫টি ভোট কেন্দ্রের কোথাও কোন প্রকার অপ্রীতিকর কোন ঘটানার সংবাদ পাওয়া যায়নি।

নির্বাচন উপলক্ষে জেলা ও উপজেলা প্রশাসন এবং পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে কঠোর নিরাপত্তামুলক ব্যাবস্থা গ্রহন করা হয়। সেই সাথে র‌্যাব-৬ এর পক্ষ থেকে কয়েকটি টহল টিম উপজেলা সর্বত্রই বিচরন করে। নির্বাচনকে ঘিরে প্রশাসনের পক্ষ থেকে কয়েকটি স্তরে নিরাপত্তা ব্যাবস্থা গ্রহন করা হয়।

শান্তিপূর্ণ নির্বাচন শেষে সহকারি রির্টানিং অফিসার মু. রাশেদুজ্জামান ৭৫ টি কেন্দ্রের আনুষ্ঠানিক ফলাফল ঘোষনা করেন।

এ সময়ে অফিসার ইনচার্জ মো. জিল্লুর রহমানসহ সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সহকারি রিটানিং অফিসার উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা মো. মোক্তার হোসেনকে চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী ঘোষনা করেন। তিনি চেয়ারম্যান পদে দোয়াত-কলম প্রতীকে পেয়েছেন-৩২৭২৭ ভোট, তার নিকতম প্রতিদ্বন্দী প্রার্থী মুন্শী ফররুখ হোসাইন মিন্টু আনারস প্রতীকে পেয়েছেন-২৮৮২৬ ভোট।

ভাইস-চেয়ারম্যান পদে উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মোঃ জামিনুর রহমান উড়োজাহাজ প্রতীকে পেয়েছেন -৩৬১৫১ ভোট, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দী দীনবন্ধু মন্ডল তালা প্রতীকে পেয়েছেন ২১২১২ ভোট। মহিলা-ভাইস চেয়ারম্যান পদে জিনাত রেহানা খান প্রজাপতি প্রতীকে পেয়েছেন-২৭১৯২ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দী প্রার্থী সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সোহাগী

জাতির পিতা  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৪তম জন্মবার্ষিকী পালিত

 

 

আলোড়ন৭১ প্রতিবেদক:

১৯২০ সালের এই দিনে টুঙ্গিপাড়ার এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন জাতির পিতা  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

আজ দিবসটি উদযাপনে দেশের সকল সরকারি আধা সরকারি স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়।

সারা দেশের ন্যায় গোপালগঞ্জরে কাশিয়ানীতেও  জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৪ তম শুভ জন্মদিন পালিত হয়েছে।

রবিবার ( ১৭ই র্মাচ ২০২৪ ) সকাল ১১ টায় উপজেলা আওয়ামীলীগ অফিসে এই আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজলো আওয়ামী লীগরে সভাপতি বীর মুক্তযিোদ্ধা মোঃ মোক্তার হোসনে।

প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বেসরকারি বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী মোহাম্মদ ফারুক খান এমপি।

অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন উপজেলা আওয়ামী লীগরে সাধারণ সম্পাদক কাজী জাহাঙ্গীর আলম ।উক্ত আলোচনা সভা শেষে মন্ত্রী ঐচ্ছকি ফান্ড থেকে গরীবদের মাঝে চেক বিতরন করেন এবং মোহাম্মদ ফারুক খান এমপি মাধ্যমে সৌদি আরবরে কিং সালমান সুনবুল্লাহ ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসযি়শেনরে দ্বারা  গরীব অসহায়দের চাল ডাল তেল রমজানরে উপহার দিলেন। এ সময় দলীয় নেতা কর্মীসহ সাধারণ জনগন উপস্থিত ছিলে।

 

 

 

 

গোপালগঞ্জে দৈনিক যুগান্ত পত্রিকার সম্পাদক সহ ২ সাংবাদিকের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির মামলা

0

 

আলোড়ন৭১ প্রতিবেদক:

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলার মাহমুদপুর ইউনিয়নের ডোমরাকান্দি নুরুল ইসলাম মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মো. জাকারিয়া বাদী হইয়া আসামী দৈনিক যুগান্তর পত্রিকার কাশিয়ানী উপজেলা প্রতিনিধি লিয়াকত হোসেন লিংকন, প্রতিদিনের সংবাদ পত্রিকার প্রতিনিধি আসাদুজ্জামান ( জামান ) ও দৈনিক যুগান্ত পত্রিকার সম্পাদক সাইফুল আলম এর বিরুদ্ধে বিজ্ঞ আমলী আদালত গোপালগঞ্জে একটি মামলা করেন যাহা কাশিয়ানী সিআর ১২৫/২৪ ধারা ত৮৫/৫০০/৫০১/৩৪। বিজ্ঞ আদলত তদন্ত করে ওসি ডিবি গোপালগঞ্জকে আগামী ৩/৪/২৪ তারিখে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ প্রদান করেন।

মামলার বিবরণীতে জানাযায় আসামী লিয়াকত হোসেন লিংকন ও আসাদুজ্জামান ( জামান ) মামলার বাদী অধ্যক্ষ মো. জাকারিয়ার নিকট ৪ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি করে। দাবিকৃত টাকা না দিলে তার বিরুদ্ধে মিথ্যা হয়রানি মুলক সংবাদ প্রকাশ করিয়া মাদ্রাসা থেকে বেইজ্জতি করিয়া তাড়াইয়া দিবে বলে হুমকি দেয়।

 

কাশিয়ানীতে যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয়েছে মহান বিজয় দিবস

0

 

আলোড়ন৭১ প্রতিনিধি:
গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয়েছে মহান জাতীয় দিবস।
১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশের বিজয় দিবস। ৯ মাস যুদ্ধের পর ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর ঢাকার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে হানাদার পাকিস্তানি বাহিনী বাংলাদেশ ও ভারতের সমন্বয়ে গঠিত যৌথবাহিনীর কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে আত্মসমর্পণ করে।
পৃথিবীর বুকে বাংলাদেশ নামে একটি নতুন স্বাধীন ও সার্বভৌম রাষ্ট্রের অভ্যুদয় ঘটে। প্রতি বছর বাংলাদেশে দিবসটি যথাযথ ভাবগাম্ভীর্য এবং বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার সঙ্গে পালিত হয়।
কাশিয়ানী শহীদ মিনার চত্তরে ১৬ ডিসেম্বর ভোরে ৩১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে দিবসের সূচনা ঘটে।
বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে যারা শহীদ হয়েছেন তাদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের অংশ হিসেবে উপজেলা চত্তরে বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পমাল্য অর্পণ, মুক্তিযোদ্ধা অফিসে, ভাটিয়াপাড়া ও ফুকরা বদ্ধ ভূমিতে বীর মুক্তিযোদ্ধারা, উপজেলা আওয়ামী লীগ,উপজেলা প্রশাসন, থানা প্রশাসনসহ সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন দপ্তরের পক্ষে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

পরে সকাল ৮টায় উপজেলা জিসি পাইলট স্কুল মাঠে পুলিশ বাহিনী, আনসর ভিডিপি, ফায়ার সার্ভিসসহ বিভিন্ন স্কুল-কলেজের অংশগ্রহণে কুচকাওয়াজে সালাম গ্রহণ অনুষ্ঠান শুরুর আগে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রাশেদুজ্জামান, উপজেলা চেয়ারম্যান সুব্রত ঠাকুর হিল্টু,আওয়ামী লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. মোক্তার হোসেন, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মিলন শাহা, থানা অফিসার ইনচার্জ মো. জিল্লুর রহমান,  সাধারণ সম্পাদক কাজী জাহাঙ্গীর আলমকবুতর উড়িয়ে অনুষ্ঠনের শুভ সূচনা করেন।

কবুতর উড়িয়ে অনুষ্ঠনের শুভ সূচনা করেন

কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন  উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সোহাগী রহমান মুক্তা, কাশিয়ানী সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান খোকন সিকদার, যুগ্ম সম্পাদক শরাফত হোসেন লাভলু ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. আনোয়ার হোসেন আনু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
উক্ত অনুষ্ঠানটি সঞ্চালন করেন আমাদের প্রিয়জন সাহিদুর রহমান মিঠু ও তারিকুজ্জামান মিলন।

 

দেশের ৩৩৮ থানার ওসিকে বদলির প্রস্তাব ইসি দ্বারা অনুমোদিত

0

 

আলোড়ন৭১ প্রতিবেদন:

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে, এবং এর আগে নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনার পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশ সদর দপ্তর তাদের প্রস্তাব তৈরি করেছে। এ প্রস্তাব প্রথমে নির্বাচন কমিশনে পাঠানো হয়েছে এবং বৃহস্পতিবার এটি অনুমোদন প্রাপ্ত হয়েছে।

এছাড়াও, পুলিশ সদর দপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক (প্রশাসন) কামরুল আহসান জানান, বর্তমান কর্মস্থলে ছয় মাস বা তার চেয়ে বেশি সময় ধরে চাকরি করতে প্রস্তুত ওসিদের বদলির তালিকা তৈরি করা হয়েছে।

এছাড়াও, দেশব্যাপী ১১০ টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার পদে বদলি প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। এই প্রস্তাবটি নির্বাচন কমিশনে পাঠানো হয়েছে এবং এটি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের বদলির তালিকায় রয়েছে।

প্রতিবেদনে  জানা গিয়েছে যে, এই বদলির প্রস্তাবগুলি নির্বাচন কমিশনের উপস্থাপনের পর এটি অনুমোদিত হয়েছে, যেটি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সুষ্ঠুতা বাড়াতে তৈরি হয়েছে।

সবশেষে, এই প্রতিবেদন জানিয়েছে যে, প্রথম পর্যায়ে দেশের আট বিভাগের ৪৭ ইউএনওকে বদলির প্রস্তাবে সম্মতি দেওয়া হয়েছে এবং এর মধ্যে ঢাকা, চট্টগ্রাম, বরিশাল, খুলনা, ময়মনসিংহ, সিলেট, রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের ইউএনও সকলকে পর্যায়ক্রমে বদলি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।সূত্র সমকাল

 

 

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ২০২৪ এ যারা হলেন নৌকার মাঝি।

আলোড়ন৭১ ডেস্ক:

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রর্থীদের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। রোববার (২৬ নভেম্বর) বিকাল ৪টায় আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে নৌকার প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেন দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

পঞ্চগড়-২ নুরুল ইসলাম সুজন, ঠাকুরগাঁও-১ রমেশ চন্দ্র সেন, দিনাজপুর-২ খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, রংপুর-৬ শিরীন শারমিন চৌধুরী, সিরাজগঞ্জ-৩ আব্দুল আজিজ, সিরাজগঞ্জ-৪ শফিকুল ইসলাম, সিরাজগঞ্জ-৫ আব্দুল মমিন মন্ডল, যশোর-১ শেখ আফিল উদ্দিন, যশোর-২ তৌহিদুজ্জামান, যশোর-৩ কাজী নাবিল আহমেদ, যশোর-৫ স্বপন ভট্টাচার্য্য, মাগুরা-১ সাকিব আল হাসান ও নড়াইল-২ আসনে মাশরাফি বিন মর্তুজা, নারায়ণগঞ্জ-১ গোলাম দস্তগীর গাজী, নারায়ণগঞ্জ-২ নজরুল ইসলাম বাবু, নারায়ণগঞ্জ-৪ শামীম ওসমান মনোনয়ন, গোপালগঞ্জ-১ ফারুক খান, গোপালগঞ্জ-২ শেখ ফজলুল করিম সেলিম, গোপালগঞ্জ-৩ শেখ হাসিনা. ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪ আনিসুল হক, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৬ এ. বি. তাজুল ইসলাম, কুমিল্লা-২ সেলিমা আহমাদ, কুমিল্লা-৩ ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন, কুমিল্লা-৪ রাজী মোহাম্মদ ফখরুল পেয়েছেন।

চট্টগ্রাম-১১ এম. আবদুল লতিফ, চট্টগ্রাম-১২ মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী, চট্টগ্রাম-১৩ সাইফুজ্জামান চৌধুরী, চট্টগ্রাম-১৪ নজরুল ইসলাম চৌধুরী, চট্টগ্রাম-১৫ আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামউদ্দিন নদভী, চট্টগ্রাম-১৬ মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী, কক্সবাজার-২ আশেক উল্লাহ রফিক, কক্সবাজার-৩ সাইমুম সরওয়ার কমল, কক্সবাজার-৪ শাহিনা আক্তার চৌধুরী, পার্বত্য খাগড়াছড়ি- কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, পার্বত্য রাঙ্গামাটি- দীপংকর তালুকদার, পার্বত্য বান্দরবান বীর বাহাদুর উশৈ সিং নৌকার মনোনয়ন পেয়েছেন।

রাজবাড়ীতে পাটবোঝাই চলন্ত ট্রাকে আগুন।

ডেস্ক রিপোর্ট :

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে গভীর রাতে পাটবোঝাই চলন্ত ট্রাকে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এতে ট্রাকে থাকা পাটের ৭০/৮০ শতাংশের বেশি পুড়ে গেছে। মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) রাত আড়াইটার দিকে বালিয়াকান্দি-সোনাপুর আঞ্চলিক সড়কের ঘোড়ামারা ব্রিজের ওপর এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে রাতেই পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের লোকজন এসে আগুন নেভায়।

ট্রাকচালক জাহাঙ্গীর বলেন, দীর্ঘ ৪ বছর যাবৎ নাটোর থেকে মধুখালির আশাপুর রাজ্জাক খান জুট মিলে পাট নিয়ে আসি। গত রাতেও পাট নিয়ে যাচ্ছিলাম। বালিয়াকান্দির ঘোড়ামারা ব্রিজের কাছে পৌঁছালে অপর দিক থেকে একটি ট্রলি ব্রিজের পাশে এসে দাঁড়ায়। পাশেই একটি মোটরসাইকেলে তিনজন লোক দাঁড়িয়ে ছিল। তাদের মধ্যে একজন প্যান্ট পরা বাকি দুইজন লুঙ্গি পড়াছিল। ট্রলিটি ব্রিজ পার হলে আমিও আবার রওনা করি। কিছুদূর যেতেই বুঝতে পারি  ট্রাকের পেছনে আগুন লেগেছে। আমি নিরাপত্তার স্বার্থে নাড়ুয়া রোডে গাড়িটি ঢুকিয়ে ফায়ার সার্ভিস পুলিশ এসে আগুন নেভায়। আমার গাড়িতে থাকা পাটের ৭০ থেকে ৮০ শতাংশ পুড়ে গেছে।

বালিয়াকান্দি ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার সৈয়দ সরাফত আলী বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। তবে রাস্তার পাশের একটি গোয়াল ঘর পুড়ে গেছে ট্রাকের আগুনে। ট্রাকসহ ট্রাকে থাকা পাটের ক্ষতি হয়েছে। কি কারণে আগুন লেগেছে সেটা সঠিকভাবে বলা যাচ্ছে না।

বালিয়াকান্দি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান বলেন, ট্রাকের আগুন সড়কের পাশে থাকা বিভিন্ন বাড়ির পাটকাঠির বেড়াসহ খড়ের পালায় ছড়িয়ে পড়ে। ফায়ার সার্ভিস কর্মীদের নিয়ে আগুন নেভানো হয়। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

সুত্র: ঢাকা পোস্ট

বিএনপি ছেড়ে বিএনএম’এ যোগ দিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহ্ মো. আবু জাফর।

বিএনপি ছাড়লেন ফরিদপুর-১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহ্ মো. আবু জাফর।

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আন্দোলনে (বিএনএম) যোগ দিয়ে দলটির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব নিয়েছেন তিনি।

আজ সোমবার বিকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন তিনি।

শাহ মোহাম্মদ আবু জাফর তিনি প্রথমে বাকশাল, ১৯৭৯ সালে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের হয়ে ফরিদপুর-৪ থেকে ৮৬ সালে এবং ৮৮ সালে জাতীয় পার্টি থেকে ও সর্বশেষ ২০০৫ সালে উপ-নির্বাচনে ফরিদপুর-১ আসনে বিএনপি থেকে এমপি নির্বাচিত হন।

২০০৩ সালে জাতীয় পার্টি থেকে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলে যোগ দেন। তিনি ২০০৫ সালে ফরিদপুর -১ আসনে উপ-নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিজয়ী হন। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের নেতা সংসদ সদস্য কাজী সিরাজুল ইসলাম বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলে যোগদানের পর এই আসনে উপ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

জাতীয় নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করলেন ইসি

আলোড়ন৭১ ডেস্ক:

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করলেন বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন। আজ বিকেলে ১৫ নভেম্বর প্রধান নির্বাচন কমিশনার এ ঘোষণা দেন।

আগামী ৭ই জানুয়ারী ২০২৩ এ নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করা হয়।

আরিফুর রহমান দোলন বদলে দিয়েছেন চিরচেনা জরাজীর্ণ ফরিদপুর ১। 

মেহেদী হাসান: 

একজন সফল সমাজসেবী রত্ন-সন্তান আরিফুর রহমান দোলন। প্রাতিষ্ঠানিক সাংবাদিকতায় শিক্ষার্জন করে দেশের দুর্নীতি ও অপশক্তির বিরুদ্ধে কলম ছোড়ার নির্ভিক দাপুটে নায়ক।

বাংলা ভাই থেকে বি এন পি, সময়ের সবচেয়ে সাহসী কন্ঠে আওয়াজ তুলেছেন দেশের সকল ভয়ানক অসংগতির বিরুদ্ধে  দেশীয় আস্থাভাজন কিছু সংবাদ মাধ্যম থেকে। প্রথম আলো, বাংলাদেশ প্রতিদিন এর প্রতিদিনের অগ্নিঝড়া সব কলমের ঝংকারে কুপকাত দেশিয় অপশক্তি।

খবরের কাগজ থেকে জনতার রাজপথ একে একে আলোকিত করেছে জনতার অন্ধত্ব।

ফরিদপুরে -১ 

বাংলাদেশের নাম করা কিছু রাজনৈতিক  মহারাজ্যের মধ্যে অন্যতম এক মহারাজ্য। এখানে রাজনৈতিক দাপট যেমন প্রখর বিগত সময়ে জন-সাধারণের ভোগান্তিও প্রখর।

এই অন্ধকার মাটিচাপা দিয়ে কলমের সাথে মাথায় তুলে নিয়েছেন এই তিন থানা বিশিষ্ট ফরিদপুর ১।

একে একে বদলে দিয়েছেন চিরচেনা জরাজীর্ণ ফরিদপুর ১

কিভাবে এই মহা পরিবর্তন?  

আরিফুর রহমান দোলন, প্রায় ১ যুগের বেশি সময় মানুষের পাশে মানুষের সাথে, শিক্ষা, শান্তি, পরিবর্তন, দক্ষ জনশক্তি ও উন্নত সমাজ গঠন করবার প্রত্যয় নিয়ে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

আরিফুর রহমান দোলনের অবদান। 

বাংলাদেশ কৃষকলীগে যুক্ত হয়ে কৃষক দের পক্ষে আওয়াজ তুলেছেন নানা ভাবে। ব্যাক্তিগত সহযোগিতা ও সরকারি সহায়তায় হাসি ফুটিয়েছেন এই অঞ্চলের কৃষকদের মলিন মুখে।

সরকারি সময় সহায়তায় নিজের বংশিয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অবশিষ্ট যায়গায় নির্মাণ করেছেন কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ।

যেখানে কম্পিউটার ও ড্রাইভিং কোর্চে প্রায় ৫ শত শিক্ষিত ও স্বল্পশিক্ষিত বেকার ছাত্র-ছাত্রী দক্ষতা অর্জন করছেন। যা আজীবন চলমান।

নিজের প্রচেষ্টায়,  আওয়ামীলীগ সরকারের অর্থায়নে জনভোগান্তিপুর্ন প্রায় ২০০ টি রাস্তা ইট ও পিজ ঢালাই করন করা হয়েছে, যাতে সহজ হয়েছে সাধারণ মানুষের দৈনন্দিন জীবন ও ব্যাবসায়িক প্রবৃদ্ধি।

এর আগে নিজ অর্থায়নে প্রায় ৫০০ এর অধিক শিক্ষার্থীদের বিনামুল্যে কম্পিউটার প্রশিক্ষণ প্রদান করে ডিজিটাল বাংলাদেশকে উপহার দিয়েছেন এক ঝাক দক্ষ যুব সমাজ।

আরিফুর রহমান দোলন জিনি অন্ধকার সমাজের পাশাপাশি আলো ফুটিয়েছেন কয়েক হাজার চিকিৎসা বঞ্চিত চক্ষুরুগীদের চোখে। যারা নতুন আলোয় দেখছেন জীবনের বিশেষ মুহুর্ত।

একজন আরিফুর রহমান দোলন একজন সাধারণ মানুষের সম্পদে পরিনত হয়েছেন দিনে দিনে এভাবেই। জিনি হাসতে ভালোবাসেন হাসি ফোটাতে ভালোবাসেন।

শিক্ষায় বিশেষ অবদান।

আরিফুর রহমান দোলন এই অঞ্চলের মানুষের শিক্ষার মান আরও উন্নত করতে হাতে নিয়েছেন নানা পদক্ষেপ। প্রতিষ্ঠা করেছেন অবৈতনিক বেগম শাহানারা একাডেমি। নিজের জমিতে নিজের অর্থায়নে প্রতিষ্ঠিত এই প্রতিষ্ঠানে শিক্ষা গ্রহন করছেন সমাজের নানা শ্রেণীর মানুষের সন্তানেরা।

শিক্ষাবৃত্তি থেকে ব্যাক্তিগত সহযোগিতা নানা ভাবে অখুন্য রেখেছে সমাজের নিম্নশ্রেণীর শিক্ষার্থীদের শিক্ষা দান।

আরিফুর রহমান দোলন যাকে এ অঞ্চলের মানুষের প্রতিষ্ঠান বলে আক্ষায়িত করা হয়। যেখানে আস্থা ও ভালোবাসার এক মহা দৃষ্ঠান্ত দৃশ্যমান।

আরিফুর রহমান দোলনের দুরুদর্শিতায় যেমন সন্ত্রাস ও অসংগতি মুক্ত হয়েছে বাংলাদেশ ঠিক তেমই বঙ্গবন্ধুর আদর্শের এই সৈনিকের অক্লান্ত পরিশ্রমে বদলে গিয়েছে ফরিদপুর এক।

মানুষের প্রত্যাশা : 

সর্বস্তরের মানুষের দাবী একটাই তাদের সেবক হিসেবে এই বঙ্গবন্ধুর সুর্যন্তানকেই তারা চায়। তারা আধুনিক সমাজ প্রতিষ্ঠায় আওয়ামীলীগের হাতে হাত রেখে ঐক্যবধ্য হয়ে কাজ করবার প্রধান ব্যাক্তি হিসেবে তাইকেই চায়।

মেট্রোরেলে বিজ্ঞাপনী পোস্টারের বিষয়ে তদন্তের কমিটি গঠন।

  • ডেস্ক রিপোর্ট:

মেট্রোরেলের ভেতরে বিজ্ঞাপনী পোস্টারের বিষয়ে তদন্তের জন্য কমিটি গঠন করেছে মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ। সোমবার (১৩ নভেম্বর) কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এ এন ছিদ্দিক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এম এ এন ছিদ্দিক জানান, ম্যাস র‌্যাপিড ট্রানজিট (এমআরটি) লাইন-৬ প্রকল্পের একজন অতিরিক্ত প্রকল্প পরিচালকের নেতৃত্বে তদন্ত কমিটি আগামীকাল মঙ্গলবার (১৪ নভেম্বর) ট্রেনগুলো পরিদর্শন করবে।

আরও জানা যায়, আয় বাড়াতে অন্যান্য দেশের মতো ঢাকার মেট্রোরেলেও বিজ্ঞাপনের জন্য জায়গা ভাড়ার সুযোগ রেখেছে ডিএমটিসিএল। সম্প্রতি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান মিডিয়া কমের সঙ্গে পাঁচ কোটি টাকার চুক্তি করেছে। বিজ্ঞাপনী সংস্থাটি তৃতীয় পক্ষের বিজ্ঞাপন প্রচার করছে মেট্রোরেলে। ট্রেনজুড়ে লাগানো ফ্রিজ, টিভির বিজ্ঞাপনের ছবি ছড়িয়ে পড়লে ফেসবুকে সমালোচনার ঝড় ওঠে। সৌন্দর্য নষ্টের অভিযোগ তুলে যাত্রীরা অসন্তোষ জানান।

জেনে রাখুন আজকের এই দিনের ঘটনা

  • ডেস্ক রিপোর্ট:

আজ বুধবার, ১৫ নভেম্বর ২০২৩। এক নজরে দেখে নেওয়া যাক ইতিহাসের এই দিনে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য ঘটনা, বিশিষ্টজনের জন্ম-মৃত্যুদিনসহ গুরুত্বপূর্ণ আরও কিছু বিষয়।

১৬২১ – উত্তর ভারতের কাংড়া দুর্গ মোগল সম্রাট জাহাঙ্গীরের দখলে আসে।

১৭৯১ – আমেরিকায় প্রথম ক্যাথলিক কলেজ প্রতিষ্ঠিত হয়।

১৭৯৫ – লিয়েবে দিযেফের উদ্যোগে বাংলার প্রথম মঞ্চনাটক ‘ছদ্মবেশী’ মঞ্চস্থ হয়।

১৮০৬ – আমেরিকায় প্রথম কলেজ ম্যাগাজিন প্রকাশিত হয়।

১৮৩০ – প্রথম ভারতীয় হিসেবে রাজা রামমোহন রায় ইংল্যান্ড যাত্রা করেন।

১৮৩৭ – আইজাক পিটম্যানের শর্টহ্যান্ড পদ্ধতি প্রথম প্রকাশিত হয়।

১৮৫৯ – প্রথম আধুনিক অলিম্পিক খেলা হয় গ্রিসের এথেন্সে।

১৮৮৯ – ব্রাজিল গণপ্রজাতন্ত্রী রাষ্ট্রে পরিণত হয়।

১৯০৪ – জিলেট ব্লেড প্যাটেন্ট করেন সি জিলেট।

১৯১৩ – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর নোবেল পুরস্কার লাভ করেন।

১৯২০ – জেনেভায় প্রথম লীগ অব নেশন্সের সভা হয়।

১৯২৪ – কলকাতা কর্পোরেশনের মুখপত্র মিউনিসিপ্যাল গেজেটের প্রথম সংখ্যা প্রকাশিত হয়।

১৯২৬ – রেডিও এনবিসি’র সম্প্রচার শুরু ২৪টি কেন্দ্র থেকে।

১৯৩২ – ওয়াল্ট ডিজনি আর্ট স্কুল প্রতিষ্ঠিত হয়।

১৯৩৫ – ফিলিপিন কমনওয়েলথের উদ্বোধন হয়।

১৯৮১ – বাংলাদেশ রাষ্ট্রপতি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এতে বিচারপতি আবদুস সাত্তার বিপুল ভোটে রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হন।

১৯৮৩ – তুর্কি অধিকৃত সাইপ্রাসের স্বাধীনতা ঘোষণা করা হয়।

১৯৮৪ – জার্মানীর রাজধানী বার্লিনে আফ্রিকায় ইউরোপীয় উপনিবেশ গুলোকে ভাগ-বণ্টন করা ‍নিয়ে একটি সম্মেলন হয়েছিল। ইতিহাসে এই সম্মেলনটি বার্লিন সম্মেলন নামে পরিচিত।

১৯৮৮ – পিএলও চেয়ারম্যান ইয়াসির আরাফাত স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠনের কথা ঘোষণা দেন।

জন্ম:

১৩৯৭ – পোপ পঞ্চম নিকোলাস ।

১৬৭০ – বার্নার্ড ম্যান্ডেভিল, তিনি ছিলেন অ্যাংলো বংশোদ্ভূত ডাচ দার্শনিক, রাজনৈতিক অর্থনীতিবিদ ও ব্যাঙ্গ রচয়িতা।

১৭৩৮ – উইলিয়াম হার্শেল, তিনি ছিলেন জার্মান বংশদ্ভুত ইংরেজ জ্যোতির্বিদ ও সুরকার।

১৮৬২ – গেরহার্ট হাউপ্টমান, জার্মান লেখক, কবি, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী নাট্যকার।

১৮৭৪ – আগস্ট ক্রোঘ, ডেনিশ প্রাণিবিজ্ঞানী ও শারীরবিজ্ঞানী, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী।

১৮৬২ – জার্মানীর বিশিষ্ট লেখক গেরহার্র্ড হপম্যান।

১৯০৭ – ক্লজ ফন স্টফেনবার্গ, তিনি ছিলেন জার্মান সামরিক কর্মকর্তা।

১৯২৫ – ইয়ুলি ড্যানিয়েল, তিনি ছিলেন রাশিয়ান কবি ও লেখক।

১৯২৯ – এড আসনের, তিনি ছিলেন আমেরিকান অভিনেতা, গায়ক ও প্রযোজক।

১৯৪৫ – মুফতি ফজলুল হক আমিনী, তিনি ছিলেন বাংলাদেশের একজন ইসলামী চিন্তাবিদ রাজনীতিবিদ ও আইন বিশেষজ্ঞ।

১৯৫৯ – টিবর ফিসার, তিনি ইংরেজ লেখক।

১৯৮২ – কালু উছে, তিনি নাইজেরিয়ান ফুটবল।

১৯৮৬ – সানিয়া মির্জা, তিনি ভারতের মহিলা টেনিস খেলোয়াড়।

মৃত্যু:

১৬২৯ – বেথলেন গ্যাবর, তিনি ছিলেন হাঙ্গেরির রাজা।

১৬৩০ – জোহান্নেস কেপলার, তিনি ছিলেন জার্মানীর বিশিষ্ট নক্ষত্রবিদ।

১৮৫৬ – মধুসূদন গুপ্ত, তিনি ছিলেন প্রথম শবব্যবচ্ছেদকারী বাঙালী চিকিৎসক।

১৯১৬ – হেন্‌রিক শিন্‌কিয়েউইচ, তিনি ছিলেন পোলিশ নোবেল পুরস্কার বিজয়ী সাংবাদিক ও লেখক।

১৯১৯ – আলফ্রেড ভের্নার, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী ফরাসি বংশোদ্ভূত সুইস রসায়নবিদ ও একাডেমিক।

১৯২৩ – সাংবাদিক-সম্পাদক পাঁচ কড়ি বন্দ্যোপাধ্যায়।

১৯৫৯ – চার্লস টমসন রেস উইলসন, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী স্কটিশ পদার্থবিদ ও আবহবিৎ।

১৯৮১ – এনিড মারকেয়, তিনি ছিলেন আমেরিকান অভিনেত্রী।

১৯৮৬ – ইরানের বিশিষ্ট আলেম,গবেষক এবং সাহিত্যিক মুহাম্মাদ তাকি মোদাররেস রাজাভি ৯৫ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন।

২০০৫ – আরটো সাল্মিনেন, তিনি ছিলেন ফিনিশ সাংবাদিক ও লেখক।

দিবস:

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র – আমেরিকা রিসাইকেল দিবস।

আন্তর্জাতিক কারারুদ্ধ লেখক দিবস।

ফিলিস্তিন – স্বাধীনতা দিবস, একতরফাভাবে ১৯৮৮ সালে ঘোষিত।

শ্রীলঙ্কা – জাতীয় বৃক্ষরোপণ দিবস।

 

ঢাকা কক্সবাজার রেল যোগে নতুন বিস্ময়ে বাংলাদেশ

ডেস্ক রিপোর্ট:

প্রতীক্ষার প্রহর শেষ হচ্ছে আজ। রেল নেটওয়ার্কে যুক্ত হচ্ছে কক্সবাজার। চট্টগ্রাম-কক্সবাজার রুটে নির্মিত প্রায় ১০০ কিলোমিটার নতুন রেলপথের উদ্বোধন হচ্ছে আজ

শনিবার (১১ অক্টোবর)। এই রেলপথসহ ১৬টি প্রকল্প উদ্বোধন করতে সকালে কক্সবাজার পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উদ্বোধনের পর কক্সবাজার-চট্টগ্রামে রেল যোগাযোগ শুরু হবে। পরে ঢাকার সঙ্গে রেল যোগাযোগ চালু হবে। এজন্য সম্ভাব্য তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ১ ডিসেম্বর।

এদিন রাজধানী থেকে সমুদ্র নগরীতে টেন চলাচল শুরুর পরিকল্পনা করেছে রেল কর্তৃপক্ষ। তাদের প্রস্তাব অনুযায়ী, ঢাকা থেকে প্রথমদিকে দিনে একটি আন্তঃনগর ট্রেন চলবে। ট্রেনটি ঢাকা থেকে রাত সাড়ে ১০টায় যাত্রা করে বিমানবন্দর ও চট্টগ্রাম স্টেশনে বিরতি দিয়ে সকাল ৬টা ৪০ মিনিটে কক্সবাজারে পৌঁছাবে। আর কক্সবাজার থেকে বেলা ১টায় যাত্রা করে রাত ৯টা ১০ মিনিটে ঢাকায় ফিরবে। ফিরতি পথেও চট্টগ্রাম ও ঢাকার বিমানবন্দর স্টেশনে যাত্রাবিরতি থাকবে। পরে আরও একাধিক ট্রেন যুক্ত করা হবে এই রেলপথে।

জানা গেছে, ঢাকা-কক্সবাজার রুটে নন এসি মেইল ট্রেনে সর্বনিম্ন ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে, যা ১৮৮ টাকা। আর সর্বোচ্চ ভাড়া এসি বার্থে ১ হাজার ৭২৫ টাকা। বর্তমানে রেলের যে ভাড়ার হার আছে, সেই অনুযায়ী তা নির্ধারণ করা হয়েছে। এই রেলপথে মঙ্গলবার সাপ্তাহিক বন্ধ রাখা হয়েছে। এদিন রেল চলবে না। কক্সবাজারকে রেল নেটওয়ার্কে যুক্ত করতে নির্মিত নতুন রেলপথ তৈরিতে খরচ হয়েছে প্রায় ১৮ হাজার কোটি টাকা। পরে ঘুমধুম সীমান্ত পর্যন্ত সম্প্রসারিত হবে এই রেললাইন।

 

প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি দিয়েছেন সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী তানজিম আহমদ (সোহেল তাজ)

ডেস্ক রিপোর্ট:

বৃহস্পতিবার (২ নভেম্বর) দিবাগত রাত পৌনে এগারোটার দিকে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে গিয়ে তার হাতেই ৩ দফা দাবির স্মারকলিপি তুলে দেন সোহেল তাজ। এর আগে বিকাল চারটার দিকে মানিক মিয়া এভিনিউ সংলগ্ন গোল চত্বর থেকে গণভবন অভিমুখে পদযাত্রা শুরু করে পাঁচটার দিকে গণভবনের সামনে আসেন তিনি। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন বোন শারমিন আহমদসহ গাজীপুরের কাপাসিয়ার বিভিন্ন স্তরের কর্মী সমর্থকরা। গণভবনের সামনে কিছুক্ষণ লোকজন নিয়ে বসে থাকেন সোহেল তাজ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংসদে থাকায় সোহেল তাজ গণভবনের সামনে অবস্থান নিলে গণভবনের একাধিক প্রতিনিধি ও আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া তাঁকে গণভবনের ভেতরে গিয়ে বসার আহ্বান জানান। তবে তিনি যাননি। পরে রাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে গণভবনে যেতে বললে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে স্মারকলিপি তুলে দেন সোহেল তাজ।

তার দাবি গুলো হলো

১০ এপ্রিলকে প্রজাতন্ত্র দিবস ঘোষণা, ৩ নভেম্বর জেলহত্যা দিবস রাষ্ট্রীয়ভাবে পালন ও মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ও পূর্ণাঙ্গ ইতিহাস যথাযথ মর্যাদা ও গুরুত্বের সঙ্গে সর্বস্তরের পাঠ্যপুস্তক ও সিলেবাসে অন্তর্ভুক্ত করা।

বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদের ছেলে তানজিম আহমদ সোহেল তাজ গত দুই বছর ধরে একই দাবীতে স্মারকলিপি দিয়ে আসছেন

বাংলাদেশের কালো অধ্যায় ৩ নভেম্বর।

ডেস্ক রিপোর্ট:

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যার পর তদন্তে খন্দকার মোস্তাক আহমেদ কে বাণিজ্যমন্ত্রী থেকে রাষ্ট্রপতি হিসেবে বহাল করে সামরিক শাসন চালু করেন এবং ২২শে আগস্ট, মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্বকারী চার জন জাতীয় নেতাকে গ্রেফতার করে পুরাতন ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠান।

২ মাস ২৩ দিন পর, ৩ নভেম্বর, সেনাসদস্যরা খন্দকার মোস্তাক আহমেদ এর অনুমতি নিয়ে বেআইনিভাবে পুরাতন ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে প্রবেশ করে এবং সেখানে বন্দি অবস্থায় থাকা মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্বকারী তিনজনকে গুলি করে নৃশংসভাবে হত্যা করে।

সৈয়দ নজরুল ইসলাম, তাজউদ্দীন আহমদ, আবুল হাসনাত মোহাম্মদ কামারুজ্জামান, এবং মুহাম্মদ মনসুর আলী ছিলেন তারা। এই হত্যাকাণ্ড বাংলাদেশের ইতিহাসে একটি দুর্দান্ত ঘটনা হিসাবে পরিচিত। এই ঘটনা দেশের সেনাবাহিনীর মধ্যে বৈরূপ্য সৃষ্টি করে। ১৫ই আগস্ট এবং ৩ নভেম্বরের হত্যাকাণ্ড একই গোষ্ঠী দ্বারা ঘটিত হয়। উভয় ঘটনার উদ্দেশ্য ছিল দেশে সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের অর্জনসমূহ ধ্বংস করা এবং দেশকে নেতৃত্ব শূন্য করে পাকিস্তানি ভাবাদর্শ প্রতিষ্ঠা করা।

জেলখানায় ঐ নৃশংস হত্যাকাণ্ডের পরের দিন, ৪ঠা নভেম্বর, তৎকালীন কারা বিভাগের উপমহাপরিদর্শক কাজী আব্দুল আউয়াল লালবাগ থানায় বাদী হয়ে চার জন জাতীয় নেতার হত্যাকাণ্ডের মামলা তদন্ত করেন। মামলার এজাহারে বলা হয় যে, রিসালদার মোসলেম উদ্দিন এর নেতৃত্বে চার পাঁচ জন সদস্য কারাগারে ঢুকে চার জন জাতীয় নেতাকে হত্যা করেন।

১৯৯৬ সালে বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলা ও জেলহত্যা মামলার বিচার কার্য শুরু হয়। বিচার দিন বিশেষ কারণে টানা আট বছর চলল। ২০০৪ সালের ৩ জানুয়ারি, রায়ে আদালত তিনজন পলাতক সাবেক সেনা কর্মকর্তাকে মৃত্যুদণ্ড, ১২ জন সাবেক সেনা কর্মকর্তাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও পাঁচজনকে খালাস প্রদান করে।

২০০৮ সালের ২৮শে আগস্ট, বাংলাদেশের সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগ জেলহত্যা মামলায় অভিযুক্ত ছয়জন সামরিক কর্মকর্তাকে খালাস দেয়। খালাসীদের মধ্যে সৈয়দ ফারুক রহমান, সুলতান শাহরিয়ার রশীদ খান, বজলুল হুদা, এবং এ কে এম মহিউদ্দীন আহমেদ ছিল। তাদেরকে ২০১০ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে ফাঁসিকাষ্ঠে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়। রাষ্ট্রপক্ষ খালাসীদের সর্বোচ্চ শাস্তির আবেদন করে সুপ্রিম কোর্টে আপিল করে।

অবরোধে শঙ্কাপূর্ণ সদরঘাট কি অবস্থা যাত্রীদের?

ডেস্ক রিপোর্ট : 

বিএনপি-জামায়াতের ডাকা টানা তিন দিন অবরোধের প্রথম দিনে দেশের দক্ষিণাঞ্চল থেকে নৌপথে সদরঘাটে আসা মানুষের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো। তবে সাম্প্রতিক রাজনৈতিক সহিংসতার মধ্যে অবরোধ নিয়ে প্রতিটি যাত্রীর মাঝেই ছিল কিছুটা উদ্বেগ-উৎকণ্ঠার ছাপ।

মঙ্গলবার (৩১ অক্টোবর) সকালে রাজধানীর সদরঘাটে সরেজমিনে গিয়ে এসব চিত্র দেখা যায়। সদরঘাটে আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় নিয়োজিত পুলিশ সদস্যদের সতর্ক অবস্থানে থাকতে দেখা গেছে। লঞ্চে আসা যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, রাজধানীতে চলমান সংহিতায় সাধারণ মানুষের মধ্যে তৈরি করেছে এক ধরনের নিরাপত্তার শঙ্কা।

আলোড়ন৭১
সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনাল, ছবি সংগ্রহীত।

বিশেষ করে চলন্ত বাসে আগুনের ঘটনা যাত্রাপথে তাদের মধ্যে উদ্বেগ উৎকণ্ঠা আরও বাড়িয়ে দিয়েছে। বরিশাল থেকে আসা শফিক নামের এক যাত্রী বলেন, কয়েকদিন যাবৎ রাজধানীতে যে একটা বিভীষিকাময় পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে, তাতে আমার মতো সাধারণ মানুষেরা একটা ভয়ের মধ্যে দিন পার করছি।

তবে বিগত দিনে হরতাল অবরোধে যে ধরনের সহিংসতা তৈরি হতো সেখান থেকে বর্তমান সময়ে হরতাল অবরোধে সহিংসতার মাত্রা কিছুটা কম। চাঁদপুর থেকে আসা রাশেদ নামে আরেক যাত্রী বলেন, দেশে দ্রব্যমূল্যের যে অবস্থা তাতে যদি আমাদের মতো সাধারণ মানুষেরা ঘরে বসে থাকি তাতে তো আমাদের জীবন আর চলবে না।জীবনের তাগিদেই আমাদের বের হতে হবে, যতই হরতাল অবরোধ থাক না কেন। তবে কিছুটা হলেও তো আমাদের মাঝে ভয় কাজ করে। তারপরও কিছু করার নেই।

সকাল থেকেই সদরঘাট এলাকায় পুলিশের উপস্থিত ছিল চোখে পড়ার মতো। নাম প্রকাশ না করার শর্তে পুলিশের এক কর্মকর্তা ঢাকা পোস্টকে বলেন, আমাদের কাছে তথ্য আছে অবরোধকে ঘিরে যেকোনো ধরনের সহিংসতার সৃষ্টি হতে পারে। তাই আমরা সকাল থেকেই সদরঘাট এলাকায় অবস্থান নিয়েছি।

তিনি আরও বলেন, আমরা যাকে সন্দেহ হয় তাকে জিজ্ঞাসাবাদ ও তল্লাশি করা অব্যাহত রেখেছি প্রতিদিনের মতো। যাতে কেউ কোনো ধরনের নাশকতা করতে না পারে। এদিকে সদরঘাট থেকে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় যাত্রীবাহী বাসগুলো অন্যদিনের মতো সকাল থেকেই যাত্রী নিয়ে ছেড়ে গেছে। ছিল থ্রিহুইলার সহ অন্যান্য গাড়ির ব্যাপক উপস্থিতি। যা সদরঘাট এলাকায় ছোট-ছোট যানজটেরও সৃষ্টি করে।

ডেমরায় বাসে আগুন, চালকের সহকারীর মৃত্যু

রাজধানীর ডেমরার দেইলা এলাকায় দুর্বৃত্তরা একটি বাসে আগুন লাগিয়েছে। এতে ওই বাসের চালকের সহকারীর মৃত্যু হয়েছে। তিনি বাসের ভেতর ঘুমিয়েছিলেন বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস।

তকাল  শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে তিনটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ওই চালকের সহকারীর নাম নাজিম। তাঁর বয়স ১৮ বছর। বাসের মধ্য থেকে তাঁর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস।

ট্রেনে চড়ে পদ্মা সেতু পাড়ি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

রিপোর্টঃ মেহেদী হাসান

পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে নিয়ে টিকিট কেটে ট্রেনে চড়ে পদ্মা সেতু পাড়ি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার দুপুর ২টার দিকে ট্রেনে করে প্রধানমন্ত্রী ভাঙ্গা রেলস্টেশনে পৌঁছান।

এর আগে দুপুর পৌনে ১টার দিকে ট্রেনে পদ্মা পার হন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার আগে পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্পের ঢাকা-ভাঙ্গা অংশের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে মাওয়া রেল স্টেশন প্রাঙ্গণ থেকে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সকাল ১০টা ১০ মিনিটে সড়ক পথে গণভবন থেকে মাওয়ার উদ্দেশে রওনা হয়ে ১০টা ৫৮ মিনিটে প্রধানমন্ত্রী মাওয়া পৌঁছান। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে রয়েছেন ছোট বোন শেখ রেহানা। পদ্মা সেতুতে রেল চলাচলের মাধ্যমে রেলপথে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল এল রাজধানী ঢাকার কাছাকাছি। রেলপথে ঢাকা-খুলনার দূরত্ব কমল ২১২ কিলোমিটার।

স্বল্প সময়ে যাত্রী ও পণ্য পরিবহনে সম্ভাবনার দুয়ার খুলে গেল। চীনের ঋণে প্রায় ৩৯ হাজার ২৪৭ কোটি টাকা ব্যয়ে ঢাকা থেকে পদ্মা সেতু হয়ে যশোর পর্যন্ত ১৬৯ কিলোমিটার ব্রডগেজ সিঙ্গেল লাইন নতুন রেলপথ নির্মাণ করা হচ্ছে। এই রেলপথের রাজধানীর গেণ্ডারিয়া থেকে ভাঙ্গা পর্যন্ত ৭৭ কিলোমিটার চালু হচ্ছে আজ। প্রকল্প পরিকল্পনা অনুযায়ী আগামী বছর জুনে যশোর পর্যন্ত ট্রেন চলবে।

ঢাকা ভাঙ্গা রেলপথে বাসের চেয়ে ট্রেনের ভাড়া বৃদ্ধি প্রস্তাব

মেহেদী হাসান

আন্তনগর তূর্ণা এক্সপ্রেস ট্রেনের শোভন চেয়ারে বসে (নন-এসি) ঢাকা থেকে চট্টগ্রামে যেতে ভাড়া লাগে ৩৪৫ টাকা। এসি চেয়ারে ভাড়া ৬৫৬ টাকা। এই পথের দূরত্ব ৩২১ কিলোমিটার। অন্যদিকে ঢাকা থেকে পদ্মা সেতু হয়ে ফরিদপুরের ভাঙ্গার দূরত্ব ৭৭ কিলোমিটার। এই গন্তব্যে যেতে আন্তনগর ট্রেনে (নন-এসি) ভাড়া গুনতে হতে পারে ৩৫০ টাকা। এসি চেয়ারে গেলে ৬৬৭ টাকা।

পদ্মা সেতু হয়ে ঢাকা থেকে যেসব ট্রেন চলাচল করবে, সেগুলোর জন্য এমনই ভাড়া প্রস্তাব করেছে রেলওয়ের কমিটি। এখন প্রস্তাবটি রেল মন্ত্রণালয়ে অনুমোদনের অপেক্ষায় আছে। রেলওয়ে সূত্র বলছে, প্রস্তাবিত ভাড়া হারই অনুমোদিত হতে পারে। এমনটা হলে বাসের চেয়ে এই পথে ট্রেনের যাত্রীদের বেশি ভাড়া গুনতে হবে। রেল কর্তৃপক্ষের বিশ্লেষণে এসেছে, ঢাকা থেকে ভাঙ্গা পর্যন্ত নন-এসি বাসের ভাড়া ২৫০ টাকা।

আর এসি বাসের ভাড়া ৫০০ টাকা। ভাড়া প্রস্তাবের ক্ষেত্রে ঢাকা থেকে প্রতিটি গন্তব্যের বাস্তব দূরত্বের সঙ্গে পদ্মা সেতু ও গেন্ডারিয়া-কেরানীগঞ্জ পর্যন্ত উড়ালপথের জন্য বাড়তি দূরত্ব যোগ করেছে রেলওয়ের কমিটি। এর ফলে ঢাকা-চট্টগ্রাম, ঢাকা-সিলেট বা ঢাকা-রাজশাহী পথের তুলনায় ঢাকা-ভাঙ্গা পথে যাত্রীদের বাড়তি ভাড়া গুনতে হবে। রেলওয়ে সূত্র জানায়, পদ্মা সেতুর প্রতি কিলোমিটারকে ২৫ কিলোমিটার দূরত্ব ধরা হয়েছে।

একে রেলওয়ে পন্টেজ চার্জের জন্য বাড়তি দূরত্ব বলছে। আর গেন্ডারিয়া থেকে কেরানীগঞ্জ পর্যন্ত উড়ালপথের প্রতি কিলোমিটারকে ধরা হয়েছে ৫ কিলোমিটার। এ জন্যই ঢাকা থেকে ভাঙ্গার প্রকৃত দূরত্ব ৭৭ কিলোমিটার হলেও রেলওয়ে আদায় করতে চায় ৩৫৩ কিলোমিটার দূরত্বের ভাড়া। পদ্মা সেতু হয়ে ঢাকা থেকে ফরিদপুরের ভাঙ্গা পর্যন্ত নতুন রেলপথ চালু হতে যাচ্ছে।

কাল মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই রেলপথের উদ্বোধন করবেন। রেলের কর্মকর্তারা বলছেন, এই রেলপথে আগামী নভেম্বর থেকে যাত্রী নিয়ে পুরোদমে ট্রেন চলাচল শুরু হতে পারে। শুরুতে ঢাকা থেকে পদ্মা সেতু হয়ে তিনটি ট্রেন চলাচল করতে পারে। রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা থেকে খুলনাগামী আন্তনগর ট্রেন সুন্দরবন এক্সপ্রেস পদ্মা সেতু হয়ে যাবে। ভাঙ্গা থেকে ট্রেনটি রাজবাড়ী, পাটুরিয়া, কুষ্টিয়ার পোড়াদহ ও যশোর হয়ে খুলনায় যাবে।

বর্তমানে ট্রেনটি বঙ্গবন্ধু সেতু, ঈশ্বরদী, কুষ্টিয়া হয়ে চলাচল করে। অন্যদিকে রাজশাহী থেকে ঢাকা পর্যন্ত একটি ট্রেন চালানোর প্রস্তাব রয়েছে। বর্তমানে রাজশাহী থেকে মধুমতি এক্সপ্রেস ট্রেনটি ভাঙ্গা পর্যন্ত চলাচল করে। পদ্মা সেতুর ওপর দিয়ে ট্রেনটি ঢাকা পর্যন্ত সম্প্রসারণের পরিকল্পনা আছে। এ ছাড়া ঢাকা-পদ্মা সেতু-রাজবাড়ী রুটে একটি কমিউটার ট্রেন চালানোর কথাও ভাবছে রেলওয়ে। পদ্মা সেতু রেল লিংক প্রকল্পের অধীন ঢাকা থেকে যশোর পর্যন্ত ১৭২ কিলোমিটার নতুন রেলপথ নির্মাণ করা হচ্ছে। প্রকল্পে ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় ৪০ হাজার কোটি টাকা। কাল ঢাকা থেকে ভাঙ্গা পর্যন্ত রেলপথের উদ্বোধন করা হবে।

এর মধ্যে ঢাকার গেন্ডারিয়া থেকে কেরানীগঞ্জ পর্যন্ত প্রায় ২৩ কিলোমিটার রেললাইন উড়ালপথে। আর আগামী বছর যশোর পর্যন্ত রেলপথ চালুর পরিকল্পনা নিয়ে এগোচ্ছে রেলওয়ে। পুরো রেলপথ চালু হলে পদ্মা সেতু হয়ে ফরিদপুর, গোপালগঞ্জ, নড়াইল, যশোর দিয়ে ট্রেন খুলনায় যেতে পারবে। একইভাবে রাজবাড়ী হয়ে উত্তরবঙ্গের পথেও ট্রেন চলতে পারবে। ভবিষ্যতে বরিশাল হয়ে পটুয়াখালীর পায়রা পর্যন্ত রেলপথ নির্মাণের পরিকল্পনা আছে। পদ্মা সেতু নির্মাণ করেছে সরকারের সেতু বিভাগ।

এই সেতুর ওপর রেললাইন বসিয়েছে রেল কর্তৃপক্ষ। ফলে ট্রেন চলাচলের জন্য সেতু কর্তৃপক্ষকে টোল দিতে হবে। তবে এখনো এই টোল হার নিয়ে একমত হতে পারেনি সরকারি প্রতিষ্ঠান দুটি। ভাড়ার বিষয়ে জানতে চাইলে রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. হুমায়ুন কবীর প্রথম আলোকে বলেন, এই পথে লোকাল ও কমিউটার ট্রেন চলাচল করবে। সেগুলোর ভাড়া অনেক কম হবে। আন্তনগর ট্রেনের ভাড়া কিছুটা বেশিই। তবে যশোর পর্যন্ত পুরো রেলপথ চালু হয়ে গেলে ভাড়া কমে যাবে।

বর্তমানে রেলে কিলোমিটারপ্রতি এসি শ্রেণির ভিত্তি ভাড়া ১ টাকা ৯৫ পয়সা। নন-এসি শ্রেণির ভিত্তি ভাড়া ১ টাকা ১৭ পয়সা। দেশে লোকাল, মেইল, কমিউটার ও আন্তনগর—এই চার ধরনের ট্রেন চলাচল করে। এর মধ্যে ভাড়াহার কিছুটা কম-বেশি আছে। এ ছাড়া আন্তনগর ট্রেনেও বিভিন্ন শ্রেণি রয়েছে। এগুলো হলো শোভন চেয়ার, এসি চেয়ার, এসি সিট ও এসি বার্থ (ঘুমিয়ে যাওয়ার আসন)। লোকাল ট্রেনে সর্বনিম্ন ভাড়া ৫ টাকা। আন্তনগরে তা ৩৫ টাকা।

তবে সেতু ও উড়ালপথ থাকলে সর্বনিম্ন ভাড়া বাড়ে। ঢাকা থেকে পদ্মা সেতুর ওপারের পদ্মা স্টেশনের দূরত্ব ৫৫ কিলোমিটার। এই দূরত্বে শোভন চেয়ারের প্রস্তাবিত ভাড়া ৩৩০ টাকা। এসি চেয়ারের ভাড়া ৬৩৩ টাকা। এসি সিটের ভাড়া ৭৫৯ টাকা। রেলওয়ে সূত্র বলছে, এখন ঢাকা থেকে বঙ্গবন্ধু সেতু হয়ে খুলনা রুটের ট্রেনগুলো চলাচল করে। এই রুটের ট্রেনগুলোকে অনেকটা পথ ঘুরতে হয়। কিন্তু পদ্মা সেতু হয়ে চললে ঘুরতে হবে কম। ফলে যশোর ও খুলনার যাত্রীদের গন্তব্যে যেতে সময় কম লাগবে, ভাড়াও বাড়বে না।

তবে মাদারীপুর, ফরিদপুর, রাজবাড়ী, গোপালগঞ্জ বা নড়াইল যেতে হলে বেশি ভাড়া গুনতে হবে। একইভাবে মালামাল পরিবহনের ভাড়াও বাড়বে। কমিটির কার্যক্রম গত ২৪ সেপ্টেম্বর রেলওয়ের পূর্বাঞ্চলের প্রধান বাণিজ্যিক কর্মকর্তা (সিসিএম) নাজমুল ইসলামকে প্রধান করে সাত সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়। কমিটিকে চারটি দায়িত্ব দেওয়া হয়। দায়িত্ব চারটি হলো

১. পদ্মা সেতুর প্রতি কিলোমিটারের জন্য বাড়তি কত কিলোমিটার যুক্ত করতে (পন্টেজ চার্জ) হবে, তা নির্ধারণ।

২. রেলওয়ের জন্য স্থায়ী একটা পন্টেজ চার্জ নির্ধারণের ফর্মুলা প্রস্তাব করা।

৩. পদ্মা সেতু দিয়ে যাত্রী ও মালামাল পরিবহনের জন্য ভাড়া নির্ধারণ।

৪. শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত মালামাল পরিবহনের কামরার (লাগেজ ভ্যান) ভাড়া নির্ধারণ।

অক্টোবর রেলভবনে বৈঠক করে। ৪ অক্টোবর রেলওয়ের মহাপরিচালকের কাছে কমিটি প্রতিবেদন জমা দেয়। কমিটি বিদ্যমান চারটি সেতুর পন্টেজ চার্জ বিশ্লেষণ করে। তারা জানায়, বর্তমানে রেলে পন্টেজ চার্জ নির্ধারণের সুনির্দিষ্ট কোনো পদ্ধতি নেই। তাই তারা সব দিক বিবেচনা করে পদ্মা সেতুর প্রতি কিলোমিটারের জন্য বাড়তি ২৫ কিলোমিটার যোগ করার প্রস্তাব করছে।

পাশাপাশি উড়ালপথকে সেতু বা ভায়াডাক্ট ধরে প্রতি কিলোমিটারকে বাড়তি ৫ কিলোমিটার বিবেচনা করেছে। ভবিষ্যতে সব নতুন সেতু ও ভায়াডাক্টের ক্ষেত্রে এ পদ্ধতি ব্যবহারের সুপারিশ করা হয়েছে কমিটির প্রতিবেদনে। কমিটির প্রতিবেদনে ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের পদ্মা সেতুকে ১৫৪ কিলোমিটার রেলপথ হিসেবে বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে।

আর ঢাকার গেন্ডারিয়া থেকে কেরানীগঞ্জ পর্যন্ত প্রায় ২৩ কিলোমিটার উড়ালপথকে ১১৫ কিলোমিটার রেলপথ ধরা হয়েছে। রেলওয়ে সূত্র জানায়, রেলে বর্তমানে পাঁচটি সেতু পারাপারের ক্ষেত্রে বাড়তি কিলোমিটার যুক্ত করা হচ্ছে। তবে তা পদ্মা সেতুর মতো এত বেশি নয়।

৪ দশমিক ৮ কিলোমিটার দীর্ঘ বঙ্গবন্ধু সেতুর ক্ষেত্রে ৮১ কিলোমিটার হিসেবে গণ্য করে ভাড়া আদায় করা হয়। অর্থাৎ প্রতি কিলোমিটার সেতুর জন্য বাড়তি ধরা হয়েছে প্রায় পৌনে ১৭ কিলোমিটার। ১ দশমিক ৮ কিলোমিটার দীর্ঘ হার্ডিঞ্জ সেতুর জন্য বাড়তি ধরা হচ্ছে ৪১ কিলোমিটার। এখানে প্রতি কিলোমিটার সেতুর জন্য বাড়তি ধরা হচ্ছে পৌনে ২৩ কিলোমিটার। ভৈরব সেতুর দৈর্ঘ্য ১ কিলোমিটার। এর জন্য ভাড়া নেওয়া হয় ২৩ কিলোমিটারের।

ব্রহ্মপুত্র সেতুর দৈর্ঘ্য দশমিক ৪ কিলোমিটার। এই সেতুর জন্য ১৬ কিলোমিটারের ভাড়া নেওয়া হয়। রেলে সম্প্রতি চালু হয়েছে মালবাহী এসি কামরা (লাগেজ ভ্যান) সেবা। মালবাহী এসি কামরার ভাড়া নন-এসি কামরার দ্বিগুণ করার প্রস্তাব করেছে কমিটি। বর্তমানে ঢাকা-চট্টগ্রাম পথে ইলেকট্রনিকস পণ্য ছাড়া অন্য মালামাল নন-এসি লাগেজ ভ্যানে পরিবহনের ক্ষেত্রে প্রতি কেজির জন্য ভাড়া আদায় করা হয় ২ টাকা ৩৫ পয়সা। সে হিসাবে এসি লাগেজ ভ্যানের ভাড়া কেজিপ্রতি ৪ টাকা ৭০ পয়সা হতে পারে।

 

পর্শু ঢাকা ফরিদপুর রেলচলাচল উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

রিপোর্টঃ মেহেদী হাসান

আর দুই দিন পর ফরিদপুরের মানুষের বহুল আকাঙ্ক্ষিত ঢাকা থেকে পদ্মা সেতু হয়ে ভাঙ্গা পর্যন্ত রেল চলাচলের শুভ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ নিয়ে ফরিদপুরের মানুষের মনে বয়ে যাচ্ছে আনন্দের বন্যা।

তারা ট্রেনে করে পদ্মা সেতু পাড়ি দিতে উদগ্রীব হয়ে আছেন। রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে, পদ্মা সেতুর ওপর দিয়ে ঢাকা থেকে যশোর পর্যন্ত ১৭২ কিলোমিটার নতুন রেলপথ নির্মাণের জন্য সরকার পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্প ২০১৬ সালে অনুমোদন করে। প্রকল্পের আওতায় ১৭২ কিলোমিটার পথ নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়। কিন্তু এই পুরো পথটি এখনও নির্মাণ না হওয়াতে আপাতত ঢাকা থেকে স্বপ্নের পদ্মা সেতু হয়ে ফরিদপুরের ভাঙ্গা পর্যন্ত প্রায় ৮২ কিলোমিটার রেলপথ এখন ট্রেন চলাচলের জন্য প্রস্তুত।

রেলপথের এই অংশই আপাতত উদ্বোধন করবে সরকার। এরপর এই পথে দ্রুততম সময়ের মধ্যে জনসাধারণের চলাচলের জন্য বাণিজ্যিক ট্রেন চালানো হবে। প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে ফরিদপুর গোপালগঞ্জ ও মাদারীপুরের মানুষের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন পূরণ হবে। পাশাপাশি সাশ্রয়ী মূল্যে ঢাকার সাথে নিরাপদ যোগাযোগ সম্ভব হবে। এতে গণপরিবহনের একচেটিয়া প্রভাব ও যাতায়াতে বেশি ভাড়া থেকে বাঁচবে এ অঞ্চলের মানুষ।

ফরিদপুর ভাঙ্গার বাসিন্দা মাহতাব হোসেন (৩২)। বেসরকারি এই চাকরিজীবী বলেন, ঈদে ঢাকা থেকে আসতে হয় গাদাগাদি করে।এসময় গণপরিবহনগুলো ইচ্ছেমত ভাড়া বাড়িয়ে নেয়। আমাদের বাধ্য হয়েও আসতে হয়। ট্রেন চালু হওয়ায় যে আমরা খুশি তার অন্যতম কারণ হচ্ছে এই ট্রেনে অন্যসময় তো বটেই বিশেষ করে ঈদের ছুটিতে সাশ্রয়ী মূল্যে বাড়িতে ফিরতে পারব। ঈদের বোনাসের নামে বাসের যাত্রীদের মতো এখানে পটেককাটার সুযোগ থাকবে না। আমি মনে করি এসব কারণে রেল এই অঞ্চলের মানুষের জীবনমানের উন্নয়ন ঘটবে।

ফরিদপুরের মধুখালি উপজেলার বাসিন্দা ফরিদপুর সরকারি রাজেন্দ্র কলেজের ব্যবস্থাপনা দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী নুসরাত ত্রয়ী (২২) বলেন, আমি কখনও ট্রেনে উঠিনি। পদ্মা সেতুতে ট্রেন চলার খবর শুনে আগেই বাসায় বলে রেখেছি যেদিন প্রথম ট্রেন চলবে সেদিনই আমরা পরিবারের সবাই মিলে ট্রেনে ঢাকা যাব এবং ট্রেনে করেই ফিরে আসব। প্রসঙ্গত, ১০ অক্টোবর ঢাকা-ভাঙ্গা রেলপথ উদ্বোধন করতে ট্রেনে চড়ে ফরিদপুরের ভাঙ্গায় আসবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পরে ভাঙ্গা উপজেলা সদরের কাজী আবু ইউসুফ স্টেডিয়াম মাঠে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক জনসভায় দুপুর ২টার দিকে বক্তব্য দেবেন তিনি।